আজ ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং

লামায় শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে আলোচনা ও বস্ত্র বিতরণ

মোঃ নাজমুল হুদা, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধিঃ বান্দরবানের লামা উপজেলার কেন্দ্রীয় হরি মন্দিরে শারদীয় দূর্গােৎসবের মহা নবমীর দিনে আলোচনাসভা ও সনাতনী সমাজে দরিদ্র পরিবারের মাঝে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নবমী পূজার দিনে অতিথিরা লামাতে পৌঁছে প্রথমে কেন্দ্রীয় সার্বজনীন হরি মন্দিরে যান। সেখানে ধর্মীয় নেতাদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল লামা কেন্দ্রীয় দূর্গাপুজা উদযাপন পরিষদ। এরপর বস্ত্র বিতরণ পূর্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন লামা উপজেলা দূর্গাপুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বাবুল দাশ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন পরিষদের অর্থ সম্পাদক গোপন কান্দি চৌধুরী।উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাঃ সম্পাদক মোঃ ইসলাম বেবী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ অসাম্প্রদায়িক চেতনায় এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশে অসাম্প্রদায়িক চেতনা খুবই সুদৃঢ়। জাতির পিতার স্বপ্নপূরণে এই পূজাও একটি উপলক্ষ্য। আমাদের সম্প্রীতির বাংলাদেশ তথা বান্দরবান আরো এগিয়ে যাক, এই প্রত্যাশা করছি। বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা আ,লীগের উপদেষ্টা ও পার্বত্য অঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল বরণ দাশ বলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলার প্রতিটি ধর্মের মানুষের মাঝে সম্প্রীতির বন্ধন ভালভাবে সহঅবস্থানে আছে। যা আমাদের গর্ব করার মত। বান্দরবান জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাশ বলেন,প্রীতির এই বাধন অক্ষুণ থাকুক, এটাই আমাদের কাম্য। তিনি আরো বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল রাখতে সকলের সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন। লামা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ,লীগের সভাপতি আলহাজ্জ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত ও উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে একটি সম্প্রীতির দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তফা জামাল বলেন, লামা একটি সম্প্রীতির উপজেলা। এখানে সাম্প্রদায়িকতার কোন চিহ্ন নেই। আমরা সবাই মানুষ। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। এক্ষেত্রে তাই আমরা সবাই মিলেমিশে উৎসব করব। লামা পৌরসভার মেয়র মোঃ জহিরুল ইসলাম বলেন,এদেশে প্রতিটি ধর্মের মানুষ অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে যার যার ধর্ম পালন করে যাচ্ছে। তাই আগামী নির্বাচনেও নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর ঊশৈসিং এম.পি কে ষষ্ঠ বারের মত বিজয়ী করে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। লামা থানা অফিসার ইনচার্জ অপেল্লা রাজু নাহা বলেন, ৫দিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে রামুর বিভিন্ন পূজামন্ডপে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জোরদার করা হয়েছে। পাশাপাশি বিভিন্ন স্টেশন, সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে যানজট নিরসনেও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এই উৎসব যেন লামার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা নির্ভয়ে উদযাপন করতে পারে সে লক্ষ্যে সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জন্নাত রুমি বলেন, লামার সকল পূজা মন্ডপে উৎসবমুখর পরিবেশে সনাতন ধর্মের লোকজন উৎসব পালন করতে পারে সে লক্ষ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রশাসনের উদ্যোগে মতবিনিময় সভা করে প্রতিটি পূজা মন্ডপেই সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। ফলে লামাতে উৎসবমুখর পরিবেশে শারদীয় দূর্গোৎসব পালিত হচ্ছে। লামা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বাবুল দাশ দাশ ও সম্পাদক বিজয় আইচ বলেন, লামা হচ্ছে অসাম্প্রদায়িক চেতনার উর্বর ভূমি। হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান মিলিত প্রয়াসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে চাই।
এদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তথা পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এম.পি,র শুভেচ্ছা উপহারসহ জেলা পরিষদ,পৌরসভা,উপজেলা প্রশাসন,ও বিভিন্ন ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে অনুদান পেয়ে হাজারো সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে আনন্দ উচ্ছাস বিরাজ করছে। এসময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় হরি মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক প্রসন্ন কান্দি ভট্টাচায্য,বক্তব্য রাখেন বান্দরবান জেলা দর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি অমল কান্দি দাশ।উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান জেলা ম্যাজিস্ট্রেষ্ট জাকির হোসেন,লামা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন,ধর্মীয় গুরুজন,রাজৈতিক ব্যক্তিবর্গ,সুশীল সমাজের লোকজন সহ শত শত ভক্তবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category
Shares