মির্জাপুরে নদভাঙন


টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় বংশাই ও এর সঙ্গে যুক্ত ঝিনাই নদের দুই পাশের ভাঙনে যেভাবে রাস্তা, ফসলি জমি বিলীন হচ্ছে তা উদ্বেগজনক। প্রথম আলোয় গত সোমবার প্রকাশিত খবর অনুযায়ী গত দুই মাসে এই দুই নদের ভাঙনে উপজেলার গাড়াইল, গোড়াইল, চাকলেশ্বর, থলপাড়া, হিলরা, ফতেপুর, সুতানড়ি, বানকাটা ও পারদীঘি এলাকার প্রায় ৩০ একর ফসলি জমি বিলীন হয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় ৩০০ ঘর সরিয়ে নিতে হয়েছে। অব্যাহত ভাঙনে গোড়াইল গ্রামের একটি রাস্তার একাংশ ধসে পড়েছে।
দুঃখের বিষয় হচ্ছে নদের এই ভাঙন শুধু প্রাকৃতিক কারণে হচ্ছে না। এর জন্য দায়ী কিছু লোভী মানুষের কর্মকাণ্ড। পাঁচ-ছয় বছর ধরে নদ দুটি থেকে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু তুলছেন স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। এ ক্ষেত্রে তাঁরা
কোনো নিয়মনীতি মানছেন না। নদের গভীর তলদেশ পর্যন্ত খনন করে বালু তোলায় দুপাড়ে ভাঙন দেখা দেয়। এলাকাবাসী অনেক চেষ্টা করেও এই ব্যক্তিদের বালু তোলা থেকে নিবৃত্ত করতে পারেননি। উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বালু তোলার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের সাজা ও জরিমানা করেছে। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি।
এখন প্রশ্ন হচ্ছে এর কি কোনো প্রতিকার নেই? প্রভাবশালী বলে কেউ কেউ যা খুশি তাই করবে আর সাধারণ মানুষ তার খেসারত দিয়েই যাবে? জমি ও বাড়িঘর নদে বিলীন হতেই থাকবে? মির্জাপুর উপজেলা প্রশাসনকেই এর দায়িত্ব নিতে হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নদভাঙনের শিকার ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনকে কিছু সহায়তা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এটা কোনো সমাধান হতে পারে না।
ভাঙনের কারণ দূর না করে এ ধরনের সহায়তা দেওয়া অর্থহীন। ভাঙন রোধে স্থায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার কোনো বিকল্প নেই। উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে এ ব্যাপারে উদ্যোগী হতে হবে। অবৈধভাবে বালু তোলা পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আজ পবিত্র শবে বরাত

» রাষ্ট্রপতির কাছে মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদন

» কুড়িগ্রামে Vision 22 এর অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ

» শাহজাদপুরে মাটির ট্রাক খাদে পড়ে ১ শ্রমিক নিহত

» কক্সবাজার জেলা লকডাউন ঘোষণা

» ঈদগাহ রিপোর্টার্স সোসাইটির উদ্যোগে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল

» চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষায় ৮৮ জনের নেগেটিভ

» করোনায় দেশে আরো ৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৫৪

» চকরিয়ায় করোনা’র চেয়ে আতঙ্ক গুজব ভাইরাস!

» দঃ সাহিত্যিকাপল্লী সমাজ কমিটির উদ্যোগে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

উপদেষ্টা:নজরুল ইসলাম রানা
সম্পাদক : মোহাম্মাদ মোস্তফা কামাল
নির্বাহী সম্পাদক :মো:রফিক উদ্দিন লিটন
বার্তা সম্পাদক :নিজাম উদ্দিন

অফিস: ১৫০ নাহার ম্যানশন, ৬ষ্ঠ তলা,মতিঝিল বানিজ্যিক এলাকা,মতিঝিল ঢাকা।
মোবাইল :০১৫১৬১৭৭৩৮৫
কক্সবাজার অফিস :
সিফা ম্যানশন,বাস ষ্টেশন ঈদগাঁও, কক্সবাজার সদর।
মেইল:bddainik@gmail.com
মোবাইল :০১৮৫১২০০৭৯০/০১৬১০১১৭৯৭২

Desing & Developed BY ZihadIT.Com
,

মির্জাপুরে নদভাঙন


টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় বংশাই ও এর সঙ্গে যুক্ত ঝিনাই নদের দুই পাশের ভাঙনে যেভাবে রাস্তা, ফসলি জমি বিলীন হচ্ছে তা উদ্বেগজনক। প্রথম আলোয় গত সোমবার প্রকাশিত খবর অনুযায়ী গত দুই মাসে এই দুই নদের ভাঙনে উপজেলার গাড়াইল, গোড়াইল, চাকলেশ্বর, থলপাড়া, হিলরা, ফতেপুর, সুতানড়ি, বানকাটা ও পারদীঘি এলাকার প্রায় ৩০ একর ফসলি জমি বিলীন হয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় ৩০০ ঘর সরিয়ে নিতে হয়েছে। অব্যাহত ভাঙনে গোড়াইল গ্রামের একটি রাস্তার একাংশ ধসে পড়েছে।
দুঃখের বিষয় হচ্ছে নদের এই ভাঙন শুধু প্রাকৃতিক কারণে হচ্ছে না। এর জন্য দায়ী কিছু লোভী মানুষের কর্মকাণ্ড। পাঁচ-ছয় বছর ধরে নদ দুটি থেকে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু তুলছেন স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। এ ক্ষেত্রে তাঁরা
কোনো নিয়মনীতি মানছেন না। নদের গভীর তলদেশ পর্যন্ত খনন করে বালু তোলায় দুপাড়ে ভাঙন দেখা দেয়। এলাকাবাসী অনেক চেষ্টা করেও এই ব্যক্তিদের বালু তোলা থেকে নিবৃত্ত করতে পারেননি। উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বালু তোলার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের সাজা ও জরিমানা করেছে। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি।
এখন প্রশ্ন হচ্ছে এর কি কোনো প্রতিকার নেই? প্রভাবশালী বলে কেউ কেউ যা খুশি তাই করবে আর সাধারণ মানুষ তার খেসারত দিয়েই যাবে? জমি ও বাড়িঘর নদে বিলীন হতেই থাকবে? মির্জাপুর উপজেলা প্রশাসনকেই এর দায়িত্ব নিতে হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নদভাঙনের শিকার ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনকে কিছু সহায়তা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এটা কোনো সমাধান হতে পারে না।
ভাঙনের কারণ দূর না করে এ ধরনের সহায়তা দেওয়া অর্থহীন। ভাঙন রোধে স্থায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার কোনো বিকল্প নেই। উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে এ ব্যাপারে উদ্যোগী হতে হবে। অবৈধভাবে বালু তোলা পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা:নজরুল ইসলাম রানা
সম্পাদক : মোহাম্মাদ মোস্তফা কামাল
নির্বাহী সম্পাদক :মো:রফিক উদ্দিন লিটন
বার্তা সম্পাদক :নিজাম উদ্দিন

অফিস: ১৫০ নাহার ম্যানশন, ৬ষ্ঠ তলা,মতিঝিল বানিজ্যিক এলাকা,মতিঝিল ঢাকা।
মোবাইল :০১৫১৬১৭৭৩৮৫
কক্সবাজার অফিস :
সিফা ম্যানশন,বাস ষ্টেশন ঈদগাঁও, কক্সবাজার সদর।
মেইল:bddainik@gmail.com
মোবাইল :০১৮৫১২০০৭৯০/০১৬১০১১৭৯৭২

Design & Developed BY ZahidITLimited