উড়োজাহাজেই বসতবাড়ি

মানুষের মন বিচিত্র। বিচিত্র তার সব কাজ। বসতবাড়ির কথাই ধরুন, অদ্ভুত সব নির্মাণশৈলী দিয়ে মানুষ গড়ে তোলে তার থাকার ঘর। সত্তর দশকের বিখ্যাত কার্টুন ‘ফ্লিন্টস্টোন’-এ পাথরের এক বাড়ির আদলে পর্তুগালে ফাফে পাহাড়ের ঢালে বিশাল দুটি পাথরখণ্ড দিয়ে ঘর বানিয়েছিলেন আলবার্তো ফিগুয়েইরা। এখন সেটা পর্যটনকেন্দ্র। আবার, ক্যালিফোর্নিয়ার গ্যাবারভিলে কার্টুন চরিত্র ‘উডি উড পেকার’-এর আদলে রেড উড গাছের গুঁড়ির মধ্যে বাড়ি বানিয়েছেন এক লোক।

জুল ভার্নের কল্পকাহিনি ‘টোয়েন্টি থাউজেন্ডস লিগস আন্ডার দ্য সি’ বইয়ের নায়ক ক্যাপ্টেন নিমোর নটিলাস ডুবোজাহাজকে মনে আছে? মেক্সিকোয় সেই ডুবোজাহাজের আদলে অতিকায় শামুকের মতো বাড়ি বানিয়েছেন স্থাপত্যবিদ হ্যাভিয়ের সেনসোয়ান। আছে জুতোর মতো বাড়িও। সেটা যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ার হেলমে। কেটলি, টয়লেট, এমনকি মহাকাশযানের আদলেও বাড়ি বানিয়েছে মানুষ। তাহলে উড়োজাহাজ আর বাদ কেন!
না, বাদ তো যায়ই-নি, উল্টো ২০০০ ডলার খরচায় একটি পুরোনো ‘বোয়িং ৭৭৭’ কিনে সেটায় আরও ২৮ হাজার ডলার বিনিয়োগ করে ঘষে-মেজে বসবাসের উপযোগী করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপিতে জোয়ান ওসারি নামের এক ভদ্রমহিলা। আজ এমন এক বিমানবাড়ির গল্পই শুনুন:
বসবাসের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাই রয়েছে ক্যাম্পবেলের বিমানবাড়িতে। ছবি: রয়টার্সযুক্তরাষ্ট্রের ওরেগন রাজ্যের পাহাড়ঘেরা জাতীয় উদ্যানে পড়ে আছে একটা অতিকায় বিমান। ঘন পাইনবনের মধ্যে সেই বিমানকে ওপর থেকে দেখলে মনে হবে, হয়তো দুর্ঘটনার শিকার হয়ে এখন তা পরিত্যক্ত। কিন্তু ‘বোয়িং ৭২৭’ মডেলের সেই বিমানটির কাছে গেলে বুঝতে পারবেন, ওটা আসলে বসতবাড়ি। লোকটির নাম ব্রুস ক্যাম্পবেল, পেশায় ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার। তিনিই বানিয়েছেন এ বিমান বাড়ি।
ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়া বিমানকে অবাঞ্ছিত জঞ্জালে পরিণত হওয়া থেকে রক্ষা করার ব্রত নিয়েছিলেন ক্যাম্পবেল। সেটা ১৯৯৯ সালের কথা। একপর্যায়ে ক্যাম্পবেলের এ ‘ব্রত’ হয়ে দাঁড়ায় তাঁর জীবনের লক্ষ্য। যদিও শুরুতে বিমান বাড়ি বানানোর পরিকল্পনা তাঁর ছিল না। মালগাড়িতে বাড়ি বানাতে চেয়েছিলেন ক্যাম্পবেল। একদিন শুনলেন, মিসিসিপিতে এক নাপিত বিমানবাড়ি বানিয়ে বসবাস করছেন। ব্যস, ক্যাম্পবেলের পরিকল্পনাও হুট করে বদলে গেল।
১৯৯৯ সালে ১ লাখ ডলার খরচায় এথেন্স বিমানবন্দর থেকে একটি তিন ইঞ্জিনের বাণিজ্যিক একটি যাত্রীবাহী ‘বোয়িং ৭২৭’ বিমান কিনেছিলেন ক্যাম্পবেল। বিমানটি রাখতে ২৩ হাজার ডলার খরচায় ১০ একর জায়গাও কেনেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» রংপুরে পুলিশ-গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনায়, ৫ পুলিশ সদস্য ক্লোজড

» ভারতীয় কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী বাংলাদেশের বিজিবির হাতে আটক

» বার্সায় মেসির ১৫ বছর

» বিএনপি সরকারের রেল বন্ধের সিদ্ধান্ত ছিল দেশের জন্য আত্মঘাতী : প্রধানমন্ত্রী

» রাউজান উত্তর গুজরা জাগৃতি সংঘের বিজয়া সম্মেলন ও সঙ্গীতাঞ্জলি সম্পন্ন

» অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধিতে বিচার বিভাগের দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি অপরিহার্য

» কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগের বর্ধিত জরুরী সভা আহ্বান

» কক্সবাজার এলও শাখায় ৫ দালাল আটক!

» দুর্দান্ত খেলেও ভারতকে হারাতে পারল না বাংলাদেশ

» চকরিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

সম্পাদক: অমিত চৌধুরী
নির্বাহী সম্পাদক: সেলিম হোসেন
বার্তা সম্পাদক: মোঃ শিলু পারভেজ
আন্তর্জাতিক সম্পাদক: এস এম মেহেদী

প্রধান কার্যালয়ঃ কালিয়াকৈর, গাজীপুর, বাংলাদেশ।

শাখা অফিসঃ  গোড়াই , মির্জাপুর , টাংগাইল, বাংলাদেশ ।

Mob: 01711113657,01611117887 bangladeshdainik@gmail.com

www.bangladeshdainik.com

Desing & Developed BY ZihadIT.Com
,

উড়োজাহাজেই বসতবাড়ি

মানুষের মন বিচিত্র। বিচিত্র তার সব কাজ। বসতবাড়ির কথাই ধরুন, অদ্ভুত সব নির্মাণশৈলী দিয়ে মানুষ গড়ে তোলে তার থাকার ঘর। সত্তর দশকের বিখ্যাত কার্টুন ‘ফ্লিন্টস্টোন’-এ পাথরের এক বাড়ির আদলে পর্তুগালে ফাফে পাহাড়ের ঢালে বিশাল দুটি পাথরখণ্ড দিয়ে ঘর বানিয়েছিলেন আলবার্তো ফিগুয়েইরা। এখন সেটা পর্যটনকেন্দ্র। আবার, ক্যালিফোর্নিয়ার গ্যাবারভিলে কার্টুন চরিত্র ‘উডি উড পেকার’-এর আদলে রেড উড গাছের গুঁড়ির মধ্যে বাড়ি বানিয়েছেন এক লোক।

জুল ভার্নের কল্পকাহিনি ‘টোয়েন্টি থাউজেন্ডস লিগস আন্ডার দ্য সি’ বইয়ের নায়ক ক্যাপ্টেন নিমোর নটিলাস ডুবোজাহাজকে মনে আছে? মেক্সিকোয় সেই ডুবোজাহাজের আদলে অতিকায় শামুকের মতো বাড়ি বানিয়েছেন স্থাপত্যবিদ হ্যাভিয়ের সেনসোয়ান। আছে জুতোর মতো বাড়িও। সেটা যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ার হেলমে। কেটলি, টয়লেট, এমনকি মহাকাশযানের আদলেও বাড়ি বানিয়েছে মানুষ। তাহলে উড়োজাহাজ আর বাদ কেন!
না, বাদ তো যায়ই-নি, উল্টো ২০০০ ডলার খরচায় একটি পুরোনো ‘বোয়িং ৭৭৭’ কিনে সেটায় আরও ২৮ হাজার ডলার বিনিয়োগ করে ঘষে-মেজে বসবাসের উপযোগী করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপিতে জোয়ান ওসারি নামের এক ভদ্রমহিলা। আজ এমন এক বিমানবাড়ির গল্পই শুনুন:
বসবাসের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাই রয়েছে ক্যাম্পবেলের বিমানবাড়িতে। ছবি: রয়টার্সযুক্তরাষ্ট্রের ওরেগন রাজ্যের পাহাড়ঘেরা জাতীয় উদ্যানে পড়ে আছে একটা অতিকায় বিমান। ঘন পাইনবনের মধ্যে সেই বিমানকে ওপর থেকে দেখলে মনে হবে, হয়তো দুর্ঘটনার শিকার হয়ে এখন তা পরিত্যক্ত। কিন্তু ‘বোয়িং ৭২৭’ মডেলের সেই বিমানটির কাছে গেলে বুঝতে পারবেন, ওটা আসলে বসতবাড়ি। লোকটির নাম ব্রুস ক্যাম্পবেল, পেশায় ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার। তিনিই বানিয়েছেন এ বিমান বাড়ি।
ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়া বিমানকে অবাঞ্ছিত জঞ্জালে পরিণত হওয়া থেকে রক্ষা করার ব্রত নিয়েছিলেন ক্যাম্পবেল। সেটা ১৯৯৯ সালের কথা। একপর্যায়ে ক্যাম্পবেলের এ ‘ব্রত’ হয়ে দাঁড়ায় তাঁর জীবনের লক্ষ্য। যদিও শুরুতে বিমান বাড়ি বানানোর পরিকল্পনা তাঁর ছিল না। মালগাড়িতে বাড়ি বানাতে চেয়েছিলেন ক্যাম্পবেল। একদিন শুনলেন, মিসিসিপিতে এক নাপিত বিমানবাড়ি বানিয়ে বসবাস করছেন। ব্যস, ক্যাম্পবেলের পরিকল্পনাও হুট করে বদলে গেল।
১৯৯৯ সালে ১ লাখ ডলার খরচায় এথেন্স বিমানবন্দর থেকে একটি তিন ইঞ্জিনের বাণিজ্যিক একটি যাত্রীবাহী ‘বোয়িং ৭২৭’ বিমান কিনেছিলেন ক্যাম্পবেল। বিমানটি রাখতে ২৩ হাজার ডলার খরচায় ১০ একর জায়গাও কেনেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

মাদক বিরোধী ও সমাজকল্যান মূলক সংগঠন ড্রীমক্লাবের সাথে যুক্ত হন

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক: অমিত চৌধুরী
নির্বাহী সম্পাদক: সেলিম হোসেন
বার্তা সম্পাদক: মোঃ শিলু পারভেজ
আন্তর্জাতিক সম্পাদক: এস এম মেহেদী

প্রধান কার্যালয়ঃ কালিয়াকৈর, গাজীপুর, বাংলাদেশ।

শাখা অফিসঃ  গোড়াই , মির্জাপুর , টাংগাইল, বাংলাদেশ ।

Mob: 01711113657,01611117887 bangladeshdainik@gmail.com

www.bangladeshdainik.com

Design & Developed BY ZahidITLimited